শিরোনাম :
নাটোরে স্কুল সভাপতি বহিষ্কারের দাবিতে মানববন্ধন স্বপ্নে নয়, বাস্তবেই সোনায় মোড়ানো হোটেল শিক্ষার্থীদের ফ্রি ইন্টারনেট ও ঋণ দেওয়ার প্রস্তাব পিছু হটেছে চীনা সেনা, প্রমাণ মিলল উপগ্রহ চিত্রে করোনায় আক্রান্ত সংগীতশিল্পী সেলিম চৌধুরী ৮০ শতাংশ করোনা রোগীর উপসর্গ নেই: ব্রিটিশ জরিপ বনপাড়া শহর শাখার বঙ্গবন্ধু ছাত্রপরিষদ পক্ষ থেকে বৃক্ষ রোপন কর্মসুচী আল-জাজিরায় সাক্ষাতকার দেওয়া বাংলাদেশি যুবক রাহয়ান এর খুঁজে মালয়েশিয়া পুলিশ রায়পুর নবাগত ওসির সাথে সাংবাদিক ইউনিয়নের মতবিনিময় পাটগ্রাম উপজেলায় সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি ও সাংবাদিক ঐক্য পরিষদ কমিটি গঠন
সাঁথিয়ায় খোড়া রোগের প্রাদুভাব, ১৫টি গরু-বাছুর মারা গেছে চিকিৎসাসহ ব্যাগসিনেশন করা হচ্ছে

সাঁথিয়ায় খোড়া রোগের প্রাদুভাব, ১৫টি গরু-বাছুর মারা গেছে চিকিৎসাসহ ব্যাগসিনেশন করা হচ্ছে

তায়জুল ইসলাম,সাঁথিয়া (পাবনা)প্রতিনিধিঃ পাবনার সাঁথিয়ায়
গরু-বাছুরের খোড়া রোগের প্রাদুভাব। এ রোগে প্রায় ১৫টি গরু-
বাছুর মারা যাওয়ায় খামারী দিশাহারা হয়ে পড়েছে। ঘটনাস্থলে
চিকিৎসাসহ ব্যাগসিনেশন করা হচ্ছে।
এলাকাবাসী ও প্রাণি সম্পদ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, গত ১০ মার্চ
থেকে সাঁথিয়া উপজেলার নাড়িয়াগদাই গ্রামে গরু-বাছুরের
খোড়া রোগ দেখা দেয়। এলাকার খামারিরা প্রাথমিক ভাবে চিকিৎসা
করলেও খোড়া রোগের প্রাদুরভার বৃদ্ধি পেতে থাকে। প্রায় ৫০/৬০টি
খামারির খামারের গরু-বাছুর খোড়া রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ে। এক
পর্যায়ে গত ১০ মার্চ থেকে ২৩ মার্চ পর্যন্ত সোনাতলা পশ্চিমপাড়া
গ্রামের হারুনঅর রশিদের ৩টা, একই গ্রামের খামারি আব্দুল জলিলের
৩টা, টুকু মোল্লার ২টা, আয়েজ উদ্দিনের ১টা, বকন বাছুরসহ প্রায়
১৫টি গরু-বাছুর মারা গেছে বলে জানা যায়। খোড়া রোগের খবর পেয়ে
তাৎক্ষণিক উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ হারুনার রশিদ ও
উপসহকরী প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা শাহজাহান কবির ঘটনাস্থল
পরিদর্শন করেন এবং মেডিক্যাল টিম গঠন করে খামারিদের গরু-
বাছুরের চিকিৎসাসহ ব্যাগসিনেশন করা হচ্ছে হচ্ছে। এলাকাবাসী
জানান, উপজেলার সোনাতলা, আমোষ,বোয়াইলমারী, নড়িয়াগদাই,
জোড়গাছা গ্রামের খামারিদের প্রায় ৪০/৫০টি গরু-বাছুর খোড়
রোগে আক্রান্ত হয়েছে। প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ হারুনার রশিদ
জানান, অফিসে জনবল কম থাকায় ১জন মাত্র উপসহকরী প্রাণি সম্পদ
কর্মকর্তাকে নিয়ে আক্রান্ত গরু-বাছুরের চিকিৎসা দেয়াসহ অন্যান্য
গরু-বাছুরের ব্যাগসিনেশন করা হচ্ছে। যে কয়েকটি মারা গেছে সে
গুলি প্রায় বাছুর। বর্তমানে রোগ অনেকাংশেই নিয়ন্ত্রণে আনা
সম্ভাব হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ডেইলি আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত