শিরোনাম :
হাজী সেলিমের স্ত্রী গুলশান আরার মৃত্যু দুবলার চরে পূণ্যস্নান করে রাস উৎসব উদযাপন নিজে সন্তানের মাথা ফাটিয়ে কোলে নিয়ে ভিক্ষা ! করোনা আতঙ্ক: শ্রীলংকায় কারাগারে দাঙ্গায় নিহত ৬ নাইজেরিয়ায় কৃষক হত্যা : মৃত্যু বেড়ে ১১০, বছরের নৃশংসতম ঘটনা : জাতিসংঘ পি কে হালদারের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা, ইন্টারপোলে দুদকের চিঠি যাচ্ছে আজ সিলেটের এমসি কলেজে গণধর্ষণ, ৮ আসামির ডিএনএ মিলেছে চিতলমারীর কৃতি সন্তান নজরুল ইসলামকে নব নির্বাচিত যুগ্ম সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত করায় শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন গাজীপুরে ঝুট-তুলার গুদামে অগ্নিকাণ্ড ঠাকুরগাঁওয়ে পাট সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী ও স্টেকহোল্ডারদের উদ্বদ্ধকরণ সভা
শমী কায়সারের বিরুদ্ধে মানহানি মামলার প্রতিবেদন ১০ ডিসেম্বর

শমী কায়সারের বিরুদ্ধে মানহানি মামলার প্রতিবেদন ১০ ডিসেম্বর

অনলাইন ডেস্ক:

অভিনেত্রী শমী কায়সারের বিরুদ্ধে দায়ের করা ১০০ কোটি টাকা মানহানি মামলার পুনঃতদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ পিছিয়ে আগামী ১০ ডিসেম্বর দিন ঠিক করেছেন আদালত।

রোববার (১৫ নভেম্বর) মামলাটির তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিলো কিন্তু এদিন মামলার তদন্ত সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) প্রতিবেদন দাখিল করতে পারেননি। এ জন্য ঢাকা মেট্টোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট জিয়াউর রহমান প্রতিবেদন দাখিলের নতুন তারিখ ঠিক করেন।

২০১৯ সালের ২৫ নভেম্বর বাদী স্টুডেন্টস জার্নাল বিডির সম্পাদক মিঞা মো. নুজহাতুল হাচান পুলিশের দেওয়া প্রতিবেদনের ওপর নারাজি পিটিশন দেন। নারাজি শুনানি শেষে আদালত মামলাটি পুনঃতদন্তের জন্য পিবিআইকে নির্দেশ দেন।

গত বছরের ৩০ এপ্রিল স্টুডেন্ট জার্নাল বিডির সম্পাদক নুজহাতুল হাসান অভিনেত্রী শমী কায়সারের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৫০০ ধারায় মানহানির এই মামলাটি দায়ের করেন। ওই দিনই আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে রমনা থানার ওসিকে অভিযোগ তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

এজাহারে বলা হয়, গত ২৪ এপ্রিল জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী মিলনায়তনে ই-কমার্সভিত্তিক পর্যটন বিষয়ক সাইট ‘বিন্দু ৩৬৫’ এর উদ্বোধনকালে মিডিয়া কর্মীসহ সরকারি ঊধ্বর্তন কর্মকর্তা ও সেলিব্রেটি ব্যক্তিসম্পন্ন মানুষের উপস্থিতিতে শমী কায়সার তার দুটি স্মার্ট ফোন হারিয়ে যায় বলে অভিযোগ করেন। এরপর সেখানে শমী কায়সার উপস্থিত সাংবাদিকদের চোর বলেন। একপর্যায়ে শমী কায়সার আধা ঘণ্টা গেটে দাঁড়িয়ে থেকে সাংবাদিকদের দেহ তল্লাশি করান এবং শমী কায়সারের নির্দেশে তার নিরাপত্তাকর্মীরা মিলনায়তনের মূল প্রবেশদ্বার বন্ধ করে দেন।

ওই ঘটনার সময় বিভিন্ন মিডিয়ার ক্যামেরায় ধারণকৃত ভিডিও বিভিন্ন ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এ ছাড়া একাধিক সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়।

এজাহারে আরও বলা হয়, সাংবাদিকদের বিষয়ে শমী কায়সারের এমন মন্তব্য দেশের সমস্ত সাংবাদিক গোষ্ঠীসহ সমাজের অন্যান্য মহলের জন্য মানহানিকর এবং অপমানজনক। তার এমন আচরণের প্রচার-প্রসার ও অনলাইনে

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ডেইলি আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত