গাজীপুরে পাওনা টাকা চেয়ে ভাইয়ের হামলার শিকার বোন!

গাজীপুরে পাওনা টাকা চেয়ে ভাইয়ের হামলার শিকার বোন!

মোঃ এনামুল হক, গাজীপুর শ্রীপুর : গাজীপুর শ্রীপুরে পাওনা টাকা চাওয়ায় বোনদের উপর হামলা করেছে এক সহোদর ভাই। ঘটনাটি ঘটেছে গাজীপুরের শ্রীপুরে মাওনা ইউনিয়নের জয়নাতলী গ্রামে। থানার অভিযোগ সূত্রে এবং স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায় জয়নাতলী গ্রামের সুমেজ উদ্দিন (৬০) বিশেষ প্রয়োজনে চলতি বছরের মার্চে তার ভগ্নিপতি দেলোয়ার হোসেনের(৫৫) এর কাছ থেকে কয়েক দিনের কথা বলে ২ লক্ষ টাকা ধার নেয়। টাকা দিতে দেরি হ‌ওয়ায় ভগ্নিপতি দেলোয়ার পাওনা টাকার জন্য চাপ দিলে সুমেজ দেলোয়ারের পাওনা পরিশোধ করবে বলে তার আরেক ভগ্নিপতি আব্দুল আলীমের কাছ থেকে ২ লক্ষ টাকা হাওলাদ নেয়। সুমেজ টাকা পরিশোধ না করায় তার ভগ্নিপতিদ্বয় এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সহাযোগিতা নিয়ে ও পাওনা টাকা পেতে ব্যর্থ হয়। অবশেষে গত ৪ সেপ্টেম্বর সুমেজের বোনেরা সুয়েজের বাড়িতে গিয়ে তাদের পাওনা ৪ লক্ষ টাকা চাইতে গেলে সুমেজসহ তার পরিবারের লোকজন বোনদের উপর হামলা চালায়। হামলা চালিয়ে বোনদের গুরুতর আহত করে তাদের সাথে থাকা স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নেয়। সুমেজের বোনদের ডাক চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এসে ঘটনাস্থল থেকে তিন বোনকে উদ্ধার করে গুরুতর আহত অবস্থায় শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এর মধ্যে দুই বোনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদেরকে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। ঐদিনই সুমেজের ভগ্নিপতি দেলোয়ার হোসেন বাদী হয়ে শ্রীপুর মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগকারী দেলোয়ার হোসেন জানান উক্ত ঘটনায় তিন জনকে অভিযুক্ত করে শ্রীপুর মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। সুমেজ আমাদের বিভিন্নভাবে হুমকি দিচ্ছে এমনকি নিজের বসত বাড়ি ভাঙচুর করে আমাদের নামে মিথ্যা মামলা দেওয়ার পাঁয়তারা করছে। স্থানীয় ইউপি সদস্য আতাউর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি সমাধানের জন্য আমরা অনেক চেষ্টা করেছি। এখন সুমেজ বিভিন্ন ভাবে মিথ্যা মামলা দিয়ে বাদীদের হয়রানি করার পাঁয়তারা করছে।মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই মোঃ হারুন মিয়া বলেন, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। মারামারির ঘটনা ঘটেছে বিষয়টি আরো তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ডেইলি আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত