শিরোনাম :
কাশিমপুর থানার অভিযানে ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক ঢাকা ১৮ আসনের উপ-নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসাবে মোহাম্মদ হাবীব হাসান আলোচনার শীর্ষে নাগরপুরে বানভাসিদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ সিনহা হত্যা মামলায় ওসি প্রদীপসহ ৭ আসামীকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত লালপুরে ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার সিরাজগঞ্জের তিনটি উপজেলায় হাজার হাজার একর জমি অনাবাদি রংপুর সিটি প্রেসক্লাবের সভাপতি স্বপন চৌধুরী, সম্পাদক হুমায়ুন কবির মানিক নওগাঁ রাণীনগরে অগ্নিকান্ডে ৫ লক্ষাধীক টাকার মালামাল ভস্মিভূত বড়াইগ্রামে অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ায় ১৫ পরিবহনকে জরিমানা অস্বাভাবিক জোয়ারে কমলনগরে ২০ টি গ্রাম প্লাবিত
ঝালকাঠিতে দুর্যোগ, দু্র্ভোগ আর মানবতার সেবায় মানুষের পাশে ওসি খলিলুর রহমান

ঝালকাঠিতে দুর্যোগ, দু্র্ভোগ আর মানবতার সেবায় মানুষের পাশে ওসি খলিলুর রহমান

সৈয়দ রুবেল : প্রানগাতি করোনা পরিস্থিতিতে ঝালকাঠি পুলিশ সুপার এর নির্দেশনার পাশাপাশি দুর্গত মানুষের পাশে দাড়িয়ে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন ঝালকাঠি সদর থানার অফিসার ইনচার্জ খলিলুর রহমান ও তার সদস্যরা। করোনা সংক্রামন রোদে পুলিশ সদস্যরা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সহ অন্যান্য কার্যক্রম পদক্ষেপ নিশ্চিত করার জন্য মাঠ পর্যায়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন। প্রাণঘাতী করোনার সংক্রমণ থেকে মুক্তি পেতে করণীয় সম্পর্কে জনগণকে ক্রমাগত মনস্থান্তিক পরামর্শ দেয়ার পাশাপাশি সুবিধাবঞ্চিত মানুষের কাছে খাদ্য সামগ্রী ও নগদ অর্থ পৌঁছে দেওয়া সব সময় মুখে মাক্স ও প্রযোজ্য ক্ষেত্রে হাতে গ্লোভস ব্যবহার, স্বাস্থ্যবিধি মেনে রাস্তায় চলাচল, গণপরিবহন চলাচল তদারকি, সচেতনতা মূলক মাইকিং, লিফলেট বিতরণসহ তাদের বিভিন্ন জনকল্যাণমূলক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন। করোনা ভাইরাসের কারণে থেমে গেছে মানুষের জীবন-জীবিকা। রিকশাচালক থেকে শুরু করে নিম্নআয়ের মানুষ অসহায় কাটাচ্ছেন। এমন পরিস্থিতিতে থানার ওসির কাছে ছুটে আসলে তাদের দুর্দিনের কথা শুনে ওসি খলিলুর রহমান খাবারের জন্য নিজস্ব উদ্যোগে নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী দিচ্ছেন । ওসি খলিলুর রহমান ঝালকাঠির অসহায় দরিদ্র মানুষের খোঁজ খবর নিচ্ছেন । এবং তিনি যতদিন থানায় দায়িত্বে আছেন এটি অব্যাহত রাখবেন বলেও জানান। ঝালকাঠি পুলিশ সুপার ফাতেহ ইয়াসমিন এর কড়া নির্দেশনা প্রতিটি থানা দালালমুক্ত বা কোন প্রকার অনৈতিক কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকা। তারই ধারাবাহিকতায় ঝালকাঠি সদর থানায় সেবা গ্রহণ করতে আসলে বা কোন অভিযোগ দিতে আসলে কোন প্রকার উৎকোচ গ্রহণ তো করেই না বরং অফিসার ইনচার্জ খুশি হয়ে তাদেরকে সু পরামর্শ প্রদান করেন এবং থানায় দিনমজুর বা শ্রমিকরা অভিযোগ করতে আসলে তাদের সেই হিসেবে তাদেরকে সাধ্যমত সহযোগিতা করার চেষ্টা করেন। পুলিশ নিয়ে অনেকের বিরূপ ধারণা থাকলেও বর্তমান ঝালকাঠি জেলার পুলিশ সুপার ও সদর থানা অফিসার ইনচার্জ সে ধারণা সম্পূর্ণ বদলে দিয়েছেন। অফিসার ইনচার্জ খলিলুর রহমান একজন ব্যতিক্রম ধর্মী মিষ্টভাষী পুলিশ অফিসার। প্রতিনিয়ত তিনি সহকর্মী ও সাধারণ জনগণের আদর্শগত ভিন্নতা মেনে নিয়ে পরস্পরের সঙ্গে করে যাচ্ছেন জনগণ ও দেশের কল্যাণে।”পুলিশ জনগণের বন্ধু” তিনি এই বাক্যটির উৎকৃষ্ট নিদর্শন। তিনি অন্যতম একজন আদর্শ পুলিশ অফিসার। যিনি তার দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে আধুনিকতা প্রযুক্তি ও সততা এবং মেধার দক্ষতা দিয়ে অপরাধ দমন করার চেষ্টা করেন দেশের কল্যাণে। পুলিশ জনতার জনতা পুলিশের এই শ্লোগানকে বাস্তব রূপ দিয়েছেন এই পুলিশ কর্মকর্তা। তিনি তার সততা, নেয় নিষ্ঠা, বিচক্ষণতা ও বুদ্ধিমত্তা এবং মেধা বিকাশে তার দায়িত্বরত এলাকায় মাদক সন্ত্রাস চাঁদাবাজি দখলবাজদের হাত থেকে মুক্ত করেছেন। তার চোখে ধনী-গরীব রিকশাচালক হতে সব শ্রেণি-পেশার মানুষ সমান। তিনি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন দেশে মানুষের মাঝে উপস্থিত হয়ে মানুষের সুখ-দুঃখের কথা শুনেন এবং সুপরামর্শ দেন।একজন পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে তিনি সামাজিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ ও অবদান রেখে চলেছেন। অফিসার ইনচার্জ খলিলুর রহমান বলেন বর্তমান সরকার গণমানুষের সরকার আমাদের পাঠিয়েছেন মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে, তাদেরকে হেফাজত করতে মানুষের সাথে তাদের সুখ-দুঃখ ভাগাভাগি করে নিতে। আমরা মানুষের অতন্ত্র প্রহরী আমাদের কাজ হচ্ছে দেশকে মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, চাঁদাবাজ, ইভটিজার মুক্ত করে মানুষের মাঝে শান্তি ফিরিয়ে আনা। একজন নির্যাতিত মানুষের শেষ আশ্রয়স্থল হলো পুলিশ। আর আমরা যদি তাদের আশ্রয় এবং তাদের সমস্যা নিরসন না করি তাহলে কি করবে। পুলিশ অতন্ত্র প্রহরী হিসেবে রাত জেগে থাকে শুধু জনগণ শান্তিতে ঘুমাবি বলে, ঈদের ছুটিতেও জনগণ যাতে তাদের এই ঈদকে সুন্দর সুশৃংখল এবং শান্তিতে কাটাতে পারে সেজন্য অনেক পুলিশ অফিসার জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে, আমি একটি কথা বলব জনগণের উদ্দেশ্যে আপনারা পুলিশকে নিজের বন্ধু ভাবুন, পুলিশ জনগণের বন্ধু। পুলিশ জনগণের শুধু বন্ধুই নয়, সেবক ও বটে। পুলিশ সব সময় জনগণের বন্ধু হিসেবে জনগণের পাশে ছিল এবং আগামীতেও থাকবে। জনগণের আন্তরিক ভালোবাসা সহযোগিতা ছাড়া পুলিশের পক্ষে ব্যাপক জনগোষ্ঠীর সেবা দেওয়া সম্ভব নয়। ওসি খলিলুর রহমান আরও বলেন, বাংলাদেশ পুলিশের কর্ণধার মাননীয় আইজিপি মহোদয় সহ ঝালকাঠি জেলা পুলিশের কর্ণধার হাতে ইয়াসমিন স্যারদের সততা-নিষ্ঠা মানবিকতার আদর্শে অনুপ্রাণিত আমি। তাদের আদর্শের অনুপ্রেরণা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। জনসাধারণকে সেবা প্রদান করে উপজেলা বাসীর কাছে শতভাগ আস্থা অর্জন করেছেন ঝালকাঠি সদর থানা পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যগণ। করণা আক্রান্তদের হোম আইসোলেশন, লকডাউন ও স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করা। নিজ অর্থায়নে অসহায়দের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ এবং ন্যায্যমূল্য নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রিতে সহায়তা করেছে ঝালকাঠি উপজেলা পুলিশ বাহিনী। পুলিশ সুপার ফাতিহা ইয়াসমিন এর নির্দেশে ঝালকাঠি সদর থানার অফিসার ইনচার্জ খলিলুর রহমান প্রতিনিয়ত পুলিশের টিম নিয়ে ছুটে বেড়াচ্ছেন উপজেলার এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। থানা পুলিশ সব দায়িত্বের ঊর্ধ্বে এমন মানবিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার পাশাপাশি উপজেলার আইন-শৃঙ্খলার উন্নয়নে ভূমিকা রাখছেন। এতে উপজেলা বাসিন্দাদের মধ্যে স্বস্তি বিরাজ করছে। করোনায় মানুষের সেবা প্রদান করতে গিয়ে ইতিমধ্যে জেলা পুলিশ সহ বিভিন্ন জেলার পুলিশ কর্মকর্তা সদস্য ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন অনেক পুলিশ সদস্য প্রাণ হারিয়েছেন। কিন্তু তাতেও ঝালকাঠি সদর থানা পুলিশ থেমে নেই। জীবনের শেষ বিন্দু সময় পর্যন্ত দেশ ও জাতির সেবায় নিজেদের বিলিয়ে দেবে বলে তারা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ডেইলি আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত