শিরোনাম :
নামাজ আদায়ের অনুমতি দেওয়া হয়েছে মালয়েশিয়ার মসজিদগুলিতে প্যানেল চেয়ারম্যান আক্কাস সরদারকে হত্যাচেষ্টা মামলার ১৩ আসামী গ্রেপ্তার করোনা থেকে মুক্ত থাকতে স্বাস্থ্য বিধি মেনে ঘরে বসে ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনা করতে হবে -টুক এমপি কেশবপুরে মেছো বাঘকে পিটিয়ে হত্যা পদ্মায় ভাঙ্গনের ২৪ ঘন্টায় ভাঙ্গন প্রতিরোধের ব্যবস্থা করলেন উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম সিরাজগঞ্জে নতুন করে ৩৭ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত পোরশায় ডাক্তারসহ আরও ৫ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত বাংলাদেশে একদিনে আবারো চার হাজারের বেশি করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত বিএনপির বাজেট প্রত্যাখ্যান ঢামেক করোনা ইউনিটে দুইদিনে ১৬ জনের মৃত্যু
কোভিড-১৯ করােনা

কোভিড-১৯ করােনা

লেখিকা, রাশিদা আকতার শান্তি ।

কবিতা তােমার অনেক ক্ষমতা, তাইতাে তুমি তােমার প্রভৃতি ও রূপকে পরিবর্তন করছাে ক্ষণে ক্ষণে। আর মানুষ প্রানীদের মধ্যে সর্বশেষ্ঠ হয়েও তােমাকে দমন করার প্রতিষেধক এখনও বের করতে পারেনি। ডানা নেই, পাখা নেই তবুও দাপিয়ে বেড়াচ্ছ, পৃথিবীর এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্তে। অন্ধ সাপের মতাে ছােবল মেরে কেড়ে নিচ্ছ লক্ষ লক্ষ প্রান। তােমাকে কাবু করতে পারছেনা ক্ষমতাশীল কোন দেশ, তাদের কুটনৈতিক চিন্তা দিয়ে কিম্বা কোন এজেন্ট দিয়ে। কোন অত্যাধুনিক সাবমেশিন গান কোন হাইপারসনিক মিছাইল কিংবা কোন ক্রুইস মিজাইলর মতাে ক্ষেপনাস্ত্র দিয়ে। দেশে দেশে এত যুদ্ধ, হারা জেতার এত প্রতিযােগীতা তুমি থামিয়ে দিয়েছাে। তুমি থামিয়ে দিয়েছে সমস্ত পৃথিবীর অর্থনৈতিক উৰ্দ্ধগামী সূচক, রাজনীতি আর একজন আর একজনকে চোখ রাঙিয়ে মােড়ল হওয়ার প্রতিযােগীতা। তুমি থামিয়ে দিয়েছাে পৃথিবীর সব দেশের সব সামাজিকতা, শিশুদের সুন্দর কোলাহল আর খেলার মাঠের উত্তেজনা। তুমি থামিয়ে দিয়েছাে পৃথিবীর সব মানুষের জীবনের সব হিসেব নিকেষ। নিউটনের তৃত্বীয় সূত্রের মতাে তােমারও, এ পৃথিবীতে আসার কিছু প্রতিক্রিয়া আছে। বৈকি! তাইতাে তােমার আগমনে আকাশ, বাতাস আর বৃক্ষরাজী যেন বুক ভরে নিঃশ্বাস নিতে পারছে কিছুটা সময়। বাতাসে কিছুটা হলেও কমেছে বিষাক্ত সীসা আর কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমান। সমুদ্রের ডলফিনেরা প্রকৃতিকে যেন নিজের মতাে করে ফিরে পেয়েছে তা তাদের নাচা নাচি দেখেই বােঝা গেছে। মেধার মার খাঁচার ময়না পাখিটার জন্য হঠাৎ বিবেক যন্ত্রনা শুরু হয়ে সে ময়না পাখিটাকে ছেড়ে দিয়েছে আকাশে ডানা মেলে উড়বার জন্য। কাজের বুয়া বিদেয় করাতে গৃহকত্রী এতদিনে বুঝতে পেরেছে বুয়া আসলে ঘরের কত কাজ করে তা না হলেতো কথায় কথায় শুনিয়ে দেয়, আজি জলের মা -হিসেব তাে করনা কত টাকা বেতন নাও, তারপরেও তাে দেখে কাজটা ঠিকমতাে করােনা কিংবা কিযে রান্না করাে মুখেই দেয়া যায়না। এই কথাতে ও যে কতটা কষ্ট পায় এতদিন হয়তাে গৃহকত্রী তা ভেবেও দেখেনি। এখন থেকে নিশ্চয় বুয়াকে এই কঠিন কথাগুলাে শােনানাে থেকে সে বেড়িয়ে আসবে। শহরের মানুষগুলাে, তাদের মহাব্যস্ত জীবনের অবসান ঘটিয়ে সময় দিয়েছে ছেলে-মেয়েকে আর বৃদ্ধ মা-বাবাকে। সবাই না বুঝলেও কেউ কেউ হয়তাে এতদিনে বুঝতে পেরেছে কাদের জন্য এত ব্যস্ততা? ছেলে মেয়ের জন্যই তাে? কাজের ফাঁকে ওদেরও একটু সময় দিতে হয়, কিংবা ভাবনা এসেছে, এই বৃদ্ধ বয়সে মা-বাবাকে একটু সময় দিলে তাদের মানসিক স্বাস্থ্য ভালাে থাকে। কোভিড-১৯ করােনা তােমার যতই ক্ষমতা থাকুক না কেন, তােমার মতাে জুজু বুড়ির ভয়ে মানুষ কিন্তু তার শ্রেষ্ঠত্ব থেকে এতটুকু সরে যায়নি। তাইতাে মানুষরূপী ডাক্তার, নার্স আর স্বাস্থ্যকর্মীরা কিংবা যারা এ্যাম্বুলেন্সে রােগী বহন করে, তারা তাদের জীবনের ঝুঁকি জেনেও সেবা দিয়ে যাচ্ছে দিন রাত, তােমার আক্রমন থেকে, মানুষকে রক্ষা করবার জন্য আর এই ভালাে কাজগুলােকে ক্যামেরাবন্দী করে আর বস্তুনিষ্ট সংবাদ পরিবেশন করে মানুষের বেঁচে থাকার মনােবলকে সুদৃড় করেছে সংবাদ-কর্মীরা। সমাজ কর্মীরা নিজের জীবন বিপন্ন জেনেও দায়িত্ব নিয়েছেন মৃত লাশ দাফন করবার জন্য। এমনিতেই অমাদের দেশের পুলিশ বাহিনী হর-হামেশাই ব্যস্ত কোটি কোটি মানুষের শত কোটি ঝামেলা মেটানাের জন্য। এর মধ্যে আবার মরার উপর খারার ঘা “তুমি”। মানুষের এই দুর্দিনে, পুলিশ সম্পর্কে মানুষের যে গতানুগতিক চিন্তা তাকে ছুরে ফেলে দিয়ে তাদের নিয়মিত ডিউটির পাশাপাশি রাতের অন্ধকারে মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিয়েছে খাবার আর নানা রকম সেবা এবং তারা প্রমান করেছে পুলিশ এখন কতটা ডাইনামিক। দেশ এবং দেশের মানুষের প্রতি দরদ আর ভালবাসা না থাকলে শুধু কর্তব্য পালনের জন্য এত কিছু করা যায়না। আর সেনাবাহিনী বরাবরের মতই দেশের যে কোন দুঃসময়ে যেন সদাজাগ্রত বীর সৈনিক তারা। তারাও পৌঁছে দিয়েছে ঘরে ঘরে খাবার আর বিনা পয়সায় ১ মিনিটের বাজারের ব্যবস্থা করে হাঁসি ফুটিয়েছে শত শত দুঃস্থ মানুষদের। কেউ কেউ ব্যক্তিগত উদ্যোগে কিম্বা কোন সংগঠনের ব্যানারে খাবার নিয়ে সেবা নিয়ে যে ভাবে দাঁড়িয়েছে মানুষের পাশে তাতে প্রমান হয়েছে তােমার ভয় নয়, জয় হয়েছে মানবতার। কোভিড-১৯ করােনা-এবার মনােযােগী হয়ে অমার কিছু কথা শােন, যদি সত্যি তােমার কোন ক্ষমতা থাকে, যদি সত্যিই তুমি কোন পরিবর্তন করতে পারাে তােমার নিজের রূপকে তবে তুমি অন্ধ না থেকে জাগ্রত করাে তােমার অন্তর দৃষ্টি। সেই দৃষ্টি দিয়ে তুমি দেখে খুজে বের করাে, কারা এই পৃতিবীতে মানুষ্যত্ব বর্জিত নিকৃষ্ট মানুষ? কারা এই সুন্দর পৃথিবীকে অসুন্দর করে? যারা নিজের আধিপত্য বিস্তারের জন্য অন্যকে অন্যায়ভাবে চোখ রাঙায়, দেশে দেশে যুদ্ধ লাগায়, তাদের ধরাে। যারা মানুষ হয়ে অন্য মানুষের বেঁচে থাকার অধিকার কেঁড়ে নেয় তাদের ধরাে। যারা ধর্মের নামে হত্যা করে নিরীহ মানুষকে তাদের ছেড়ে দিওনা। মানুষ হয়েও যারা শিশু ও নারীদের ধর্ষন করে তাদের টার্গেট করাে। যারা মনুষের সুন্দর দেহকে এসিড দিয়ে ঝলসিয়ে সারা জীবন বয়ে বেড়ানাের কষ্ট চাপিয়ে দেয় মানুষের জীবনে, তাদের ধরাে। যারা শুধু টাকার জন্য ভবিষ্যত প্রজন্মের হাতে নেশা তুলে দিয়ে নষ্ট করে দেয় দেশের ভবিষ্যত তাদের টার্গেট করাে। যারা অর্থ লাভের জন্য মানুষের খাদ্যে ফরমালিন দেয়, ভেজাল মেশায় আর ভেজাল মেশায় শিশু খাদ্যে তাদের ধরাে। যারা মানুষের জীবন রক্ষাকারী ঔষধ নকল বের করে তাদের কোনাে ভাবেই ছেড়ে দিওনা। যারা সমাজে দুস্কৃতিকারী অভূক্ত মানুষের ত্রাণের চাল চুরি করে তাদের ধরাে। আর এই সব, মানুষরূপী নর পিচাশদের ধরে ভালাে মানুষদের জন্য ফিরিয়ে দাও এই পৃথিবীকে নতুন এক পৃথিবী রূপে। যেখানে থাকবে শিশুদের কোলাহল আর আনন্দ। যারা-যারা এক রত্তি কুটনীতি বােঝেনা তা না হলে তুমি চলে যাও তুমি চলে যাও এই পৃথিবী ছেড়ে। আর তােমাকে চলে যেতে হবেই। কারন মানুষ পৃথিবীতে সর্বশ্রেষ্ঠ জীব। তাদের জ্ঞান আর বুদ্ধিমত্তা দিয়ে তােমাকে দমন করার প্রতিষেধক তারা বের করবেই “ইনশাআল্লাহ”। হয় আজ, নয়তাে কাল। তুমি দেখেনিও করােনা। নতুন দিনের জন্য অপেক্ষমান ঐ নতুন সূর্য।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ডেইলি আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত